যেভাবে বুঝবেন কেউ মিথ্যা বলছে……।।

প্রায় প্রতিদিনই মানুষ কোনো না কোনো প্রয়োজনের খাতিরে মিথ্যা বলেন। যদিও মিথ্যা বলা মহাপাপ। কিছু কিছু মিথ্যা অন্যের কোনো ক্ষতি করে না। যে কোনো খারাপ পরিস্থিতি এড়াতেও অনেক সময় মিথ্যা বলতে হয়।

তবে অনেকেই অকারণে ঘন ঘন মিথ্যা বলেন। যা এক সময় তাদের অভ্যাসে পরিণত হয়। আর এভাবেই একের পর এক মিথ্যার আশ্যয় নিতে গিয়ে অন্যের ক্ষতি করে বসেন। যা মোটেও কাম্য নয়।

এমন ব্যক্তিরা মিথ্যাকে জীবনের সঙ্গী করে নেন। তবে আমাদের সবার মধ্যেই স্বাভাবিক প্রবণতা থাকে, অন্যদেন মিথ্যা ধরার। কেউ আপনাকে মিথ্যা বলছেন কি না,

তা বুঝতে পারলে এক অন্য রকম তৃপ্তি অনুভব করে থাকেন সবাই। তবে বিষয়টি ততটা সহজ নয়।

ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এ বিষয়ে একটি সমীক্ষা চালান। সেখানে কিছু লক্ষণ বলা হয়েছে, যা আমরা অনেক সময়ে উপেক্ষা করে থাকি। একটু মন দিয়ে এসব লক্ষণ টের পেলেই কেউ

আপনাকে মিথ্যা বলছে কি না তা সহজেই ধরতে পারবেন।

জেনে নিন মিথ্যাবাদীর কয়েকটি লক্ষণ-

> এমন ব্যক্তিরা অসংলগ্ন ও এলোমেলো কথা বলেন। খুব বেশি খুঁটিনাটি নিয়ে কথা বলতে চান না। আসল বিষয়টি আলোচনা না করে অন্য কথা টেনে আনেন বিবৃতিতে। সেই থেকেই বোঝা যায়,

কেউ কোনো কথা গোপন করছেন।

> একই বিষয়ে যদি কেউ বারবার ভিন্ন ভিন্ন কথা বলেন, তাহলে বুঝতে হবে তিনি কিছু লুকাচ্ছেন। সময়ের সঙ্গে খানিক স্মৃতিভ্রম সবারই হতে পারে। তবে জরুরি কোনো বিষয়ের ভুল তথ্য বলে যাওয়া মিথ্যা ছাড়া আর কিছুই

নয়।

জীবনের কোনও না কোনও সময়ে আমাদের ছোটখাটো কিছু মিথ্যা বলতে হতেই পারে। তবে অন্য কেউ মিথ্যা বলছে, এটা স্বাভাবিকভাবে নিতে পারি না আমরা কেউই। ইউনিভার্সিটি অব

ক্যালিফোর্নিয়ার ফরেনসিক সাইক্রিয়াটিস্ট ড. লিন জানাচ্ছেন এমন পাঁচ লক্ষণের কথা, যেগুলো দেখলে বুঝবেন সামনের জন মিথ্যা কথা বলছে।

যে বিষয়টি সম্পর্কে কথা হচ্ছে, সেটা সম্পূর্ণ বা বিস্তারিত না বলাটা মিথ্যা বলার অন্যতম লক্ষণ।

কথা বলার সময় স্বতঃস্ফূর্ততার অভাব বা মাঝে মাঝে থেমে গিয়ে ভেবে বলা মিথ্যা বলার লক্ষণ হতে পারে।

একই কথা বারবার বলা মিথ্যা বলার আভাস দেয়।

কেউ কোনও প্রসঙ্গে প্রয়োজনের অতিরিক্ত বিস্তারিত বলার চেষ্টা করলে সেটা মিথ্যা হতে পারে।

কথা বলার সময় স্বাভাবিক গলার স্বর বদলে যাওয়াকে মিথ্যার লক্ষণ হিসেবে ধরা হয়।

সূত্র :torunnews24.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *